রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে সমাবেশ: ১০ বছর পর প্রকাশ্যে জামায়াত

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের বলেন, জামায়াত ইসলামী নিজে থেকে কোনো সংঘাত, সংঘর্ষের ঘটনা ঘটায় না। জামায়াত সন্ত্রাস, নাশকতা, হামলা, বিশৃঙ্খলা, সংঘর্ষে বিশ্বাস করে না। জামায়াত ইসলামী শান্তিতে বিশ্বাসী। সেভাবে তারা দল গঠন করেছে। বিএনপি, আওয়ামী লীগসহ অন্য দলের লোকদের জামায়াত সম্পর্কে পড়া ও জানার অনুরোধ করবো, মেহেরবানী করে আপনারা জামায়াত সম্পর্কে জানুন। বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে তৃতীয় দল।

শনিবার (১০ শনিবার) এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিন দফা দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জামায়াতে ইসলামী।

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিনের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

আরো বক্তব্য রাখছেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ মোবারক হোসাইন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তরের ভারপ্রাপ্ত আমির আব্দুর রহমান মূসা, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমির অ্যাডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিন, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরীর উত্তরের নায়েবে আমির ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সেক্রেটারি ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম, সহ: সেক্রেটারি মাওলানা মাহফুজুর রহমান, নাজিম উদ্দীন মোল্লা, ড. ফখরুদ্দিন মানিক, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি দেলওয়ার হোসাইন, কামাল হোসাইন, ড. আব্দুল মান্নান, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সেক্রেটারি আতিকুর রহমান, ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি জেনারেল মঞ্জুরুল ইসলামসহ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ জামায়াতের কর্মপরিষদের সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

ইনস্টিটিউশনের মিলনায়তন ও ইনস্টিটিউশনের চত্বরে জায়গা সংকুলান না হওয়ায় বাইরের মৎস্য ভবন থেকে শাহবাগ পর্যন্ত রাস্তা বন্ধ হয়ে যায় এবং বৃষ্টিতে ভিজে নেতাকর্মী রাস্তায় অবস্থান নেন।

আজ শনিবার সকাল থেকে সমাবেশে অংশ নিতে রাজধানী রমনা এলাকায় ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশনে আসতে থাকেন দলটির নেতাকর্মীরা। ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশনে ভেতরে স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে। নেতাকর্মীরা ‘লিল্লাহি তাকবীর, আল্লাহ আকবর’ বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী জিন্দাবাদ, এ মুহূর্তে দরকার, তত্ত্বাবধায়ক সরকার’ নানা স্লোগান দেয়। নেতাদের মুক্তির দাবিতে স্লোগানও দেন তারা।

আরো পড়ুন ...