বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

রাজধানীতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল

দল নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা নিয়ে আলোচনা শুরু করুন: মাওলানা আবদুল বাছিত আজাদ

ঢাকা, ২৭ মে ২০২৩: খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত আমীর মাওলানা আবদুল বাছিত আজাদ বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের অসহনীয় উচ্চমূল্যে সাধারণ জনগণের বেঁচে থাকা এখন দায় হয়ে পড়েছে। একদিকে এলসির অভাবে প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি ব্যাহত হচ্ছে অন্যদিকে দলীয় সিন্ডিকেটের কারণে বাজার নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে গেছে। ঘন ঘন বিদ্যুৎ ও গ্যাস বিভ্রাট চরম আকার ধারণ করেছে। একদিকে ভোটাধিকার আদায়ের সংগ্রাম অন্যদিকে পেটের ক্ষুধা নিবারণের যুদ্ধ চালিয়ে যেতে হচ্ছে দেশের জনগণকে। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের উপর অন্য আরেকটি দেশের ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকিতে দেশের সম্মান মারাত্মকভাবে ক্ষুন্ন হয়েছে। এর দায় সরকারকেই বহন করতে হবে। জাতীয় নির্বাচন অত্যাসন্ন। এবার সুষ্ঠ ও গ্রহণযোগ্য জাতীয় নির্বাচন আয়োজন করতে ব্যার্থ হলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হবে। সরকারের উচিত টালবাহানা না করে দল নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা নিয়ে আলোচনা শুরু করা। ইতিমধ্যে দেশের অনেক ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। অবিলম্বে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি জাতীয় নির্বাচন দিয়ে দেশকে রক্ষা করুন। খেলাফত মজলিস ঘোষিত ৮দফা দাবি আজ গণদাবিতে পরিণত হয়েছে। অবিলম্বে জনগণের সকল ন্যায্য দাবি মেনে নিন।
আজ সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী শাখার উদ্যোগে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত আমির উপরোক্ত বক্তব্য পেশ করেন।
চলমান আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক সংকট উত্তরণে খেলাফত মজলিস ঘোষিত ৮ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের মহাসচিব ড: আহমদ আবদুল কাদের, নায়েবে আমীর মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, যুগ্ম-মহাসচিব এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল জলিল।
ঢাকা মহানগরী উত্তর সভাপতি মাওলানা সাইফ উদ্দিন আহমদ খন্দকারের সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আবুল হোসাইন ও উত্তর সাধারণ সম্পাদক প্রিন্সিপাল মাওলানা আজিজুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে কেন্দ্রীয় ও মহানগরী নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিজানুর রহমান, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক অধ্যাপক কাজী মিনহাজুল আলম, কেন্দ্রীয় প্রচার ও তথ্য সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুল হাফিজ খসরু, কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাব উদ্দিন আহমদ খন্দকার, ডা: আবদুর রাজ্জাক, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ সভাপতি অধ্যাপক মাওলানা আজিজুল হক, মাওলানা নজরুল ইসলাম মাজহারী, মাওলানা নুরুজ্জামান নোমানী, হুমায়ুন কবির আজাদ, কাজী আরিফুর রহমান, মাওলানা আবু ইউসুফ এনামুল হক হাসান, এডভোকেট সানাউল্লাহ, আমির আলী হাওলাদার, এডভোকেট এনায়েত রাব্বি আকরাম, জিয়া উদ্দিন আকাশ, ইঞ্জিনিয়ার মতিউর রহমান, তৌফিক বিন হারিস।
সমাবেশ শেষে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল জাতীয় প্রেস ক্লাব থেকে শুরু হয়ে বিজয়নগর নাইটিংগেল মোড় ঘুরে বিজয়নগর মোড়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাপ্ত হয়।

খেলাফত মজলিসের ৮দফা দাবি হচ্ছে:
১। ধর্মীয় শিক্ষা সংকোচন নীতি বন্ধ ও বিতর্কিত পাঠ্যক্রম বাতিল করা।
২। দল নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের ব্যবস্থা করা।
৩। নির্বাচনে সবার জন্যে সমান সুযোগ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।
৪। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার বন্ধ রাখা।
৫। গ্রেফতারকৃত আলেম উলামা ও রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহার করা।
৬। রাজনৈতিক সভা-সমাবেশের অবাধ সুযোগ নিশ্চিতকরণ।
৭। পণ্যমূল্য কমিয়ে জনদুর্ভোগ লাঘব ও দুর্নীতি নির্মূল করা।
৮। বেকার সমস্যা সমাধান ও যোগ্যতার ভিত্তিতে সরকারী চাকুরীতে নিয়োগ দান।

আরো পড়ুন ...