বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

তুরস্কে নির্বাচন : ভোটগ্রহণ চলছে

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। স্থানীয় সময় রোববার সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। শেষ হবে বিকেল ৫টায়।

২০ বছর ধরে তুরস্কে ক্ষমতায় থাকা প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান এবারই প্রথম সবচেয়ে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়েছেন। এবারের নির্বাচনে তিনিসহ প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মোট তিনজন। বাকি দু’জন হলেন- কামাল কিলিচদারোগলু ও সিনান ওগান।

এবারের নির্বাচনে কে জয়ী হবেন, তা বলা কঠিন হয়ে পড়েছে। তবে এখনো পাল্লা এরদোগানের দিকে ঝুঁকে আছে। কারণ অর্থনীতি ও সংসদীয় ব্যবস্থার ইস্যুর চেয়ে তুরস্কের বড় সংখ্যক মানুষ অখণ্ডতা উন্নয়ন ও স্থিতির উপর গুরুত্ব দিচ্ছে বলে মনে হয়।

নির্বাচনে মোট ২৪টি রাজনৈতিক দল অংশ নিয়েছে। পার্লামেন্টের ৬০০ আসনের বিপরীতে লড়াই করছেন ১৫১ স্বাধীন প্রার্থী।

তুরস্কের সরকারি বার্তা সংস্থা আনাদুলু জানিয়েছে, রোববার স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় রাষ্ট্রপতি ও সংসদ নির্বাচন শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে লক্ষ লক্ষ ভোটার ভোট দিতে শুরু করেছেন।

খবরে বলা হয়েছে, এ বছর দেশটিতে ৬৪ দশমিক ১ মিলিয়নেরও বেশি লোক তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। এর মধ্যে প্রবাসে থাকা ১ দশমিক ৭৬ মিলিয়নেরও বেশি ভোটার ইতোমধ্যে তাদের ভোট দিয়ে ফেলেছেন। তুরস্কের এই নির্বাচনে নতুন ভোটার ৪ দশমিক ৯ মিলিয়নের বেশি। আর এই নতুন ভোটাররাই দেশটির এবারের নির্বাচনে ফলাফল নির্ধারণে বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আনাদুলু জানিয়েছে, সুষ্ঠুভাবে ভোট সম্পন্ন করতে তুরস্কের নির্বাচন কমিশন সারা দেশে ভোটারদের জন্য মোট ১ লাখ ৯১ হাজার ৮৮৫টি ব্যালট বাক্স স্থাপন করা হয়েছে।

প্রত্যেক ভোটার দুটি ভোট দেবেন। এর একটি প্রেসিডেন্ট এবং অন্যটি সংসদ সদস্য নির্বাচনের জন্য। উভয়েরই মেয়াদ পাঁচ বছর। 
প্রেসিডেন্ট পদে লড়ছেন- প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান, যিনি পুনঃনির্বাচন হতে চাইছেন, প্রধান বিরোধী প্রার্থী কামাল কিলিকদারোগ্লু এবং সিনান ওগান। এই পদের আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী মুহাররেম ইনসে বৃহস্পতিবার প্রতিযোগিতা থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

৩০টিরও বেশি রাজনৈতিক দল এবং ১৫০টিরও বেশি স্বতন্ত্র সংসদীয় প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

তবে নির্বাচনে পাঁচটি বহুদলীয় ব্লক তথা জোট রয়েছে। সেগুলো হলো- পিপলস অ্যালায়েন্স, নেশন অ্যালায়েন্স, অ্যান্সেস্ট্রাল অ্যালায়েন্স, লেবার অ্যান্ড ফ্রিডম অ্যালায়েন্স এবং ইউনিয়ন অব সোশ্যালিস্ট ফোর্সেস অ্যালায়েন্স৷


সূত্র : আলজাজিরা

আরো পড়ুন ...