সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

ছাত্রলীগের হামলায় পণ্ড বর্ষবরণ অনুষ্ঠান

সিলেটের মদন মোহন কলেজের তারাপুর ক্যাম্পাসে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুর করেছে ছাত্রলীগের একটি অংশ। ওই হামলার ঘটনায় ৫ শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে ছাত্রলীগ থেকে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে শহরতলির আলী বাহার বাংলোতে এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় আহত দুজন হলেন কলেজের তারাপুর ক্যাম্পাসের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শাকিল (২৪) ও তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী কলি বেগম। আহতদের মধ্যে তিন শিক্ষার্থী সিলেট নগরের পাঠানটুলা এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। তাঁদের পরিচয় জানা যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী জানিয়েছেন, মদন মোহন কলেজের দুটি ক্যাম্পাস রয়েছে। একটি শহরের লামাবাজারে, অন্যটি তারাপুরে। তারাপুর এলাকার ক্যাম্পাসে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ক্লাস হয়। আজ বৃহস্পতিবার তারাপুর ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা বর্ষবরণের অনুষ্ঠান আয়োজন করেছিল। তাঁদের দাবি, লামাবাজর ক্যাম্পাসের ছাত্রলীগের নেতা–কর্মীদের দাওয়াত না দেওয়ায় তাঁরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওই হামলা চালান।

অবশ্য কলেজ কর্তৃপক্ষ বলছে, শিক্ষার্থীদের মধ্যে গাড়ি পার্কিংকে কেন্দ্র করে ওই হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। জানতে চাইলে কলেজ ছাত্রলীগের লামাবাজর ক্যাম্পাসের সভাপতি মাহমুদুল হাসানও একই কথা জানান।

বাংলোর ঘরে শিক্ষার্থীরা আশ্রয় নিলে সেখানেও হামলা চালানো হয়। সিলেট, ১৮ এপ্রিল ২০১৯। ছবি: প্রথম আলো

ওই বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরঞ্জাম সরবরাহ করেছিলেন পার্বন সাউন্ড সিস্টেমের পরিচালক কার্তিক পাল। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, বেলা ১টার দিকে হঠাৎ বেশ কয়েকজন যুবক অনুষ্ঠান স্থলে প্রবেশ করেন ও হামলা চালান। সে সময় গান ও নাচের পর্ব চলছিল। হামলাকারীরা স্টেজে থাকা স্পিকার ও বিভিন্ন সরঞ্জাম ভাঙচুর করেন। এরপর শিক্ষার্থীদের ধাওয়া করেন। এতে শিক্ষার্থীরা দৌড়ে বাংলোতে আশ্রয় নিলে হামলাকারীরা সেখানে ঢুকে পড়েন ও হামলা চালান। ওই হামলায় অনুষ্ঠান স্থলে থাকা বেশ কয়েকজন ছাত্রছাত্রী আহত হন।

বাংলোর তত্ত্বাবধানে থাকা মো. জয়নাল মিয়া জানান, হামলাকারীরা বাংলোর দরজা–জানালা, চেয়ার-টেবিল ও রান্নাঘরের বিভিন্ন আসবাব ভাঙচুর করেছেন। শিক্ষার্থীরা ভয়ে বাংলোতে আশ্রয় নেওয়ায় হামলাকারীরা দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন ও সেখানেও ভাঙচুর চালান।

তবে মদন মোহন কলেজ ছাত্রলীগের লামাবাজার ক্যাম্পাসের সভাপতি মাহমুদুল হাসান বলেন, ওই হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ জড়িত নয়। তারাপুর ক্যাম্পাসের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে গাড়ি পার্কিং নিয়ে বিরোধের ঘটনায় শিক্ষার্থীদের দুটি পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে বলে শুনেছেন তিনি।

মদন মোহন কলেজের তারাপুর ক্যাম্পাসের ইনচার্জ অধ্যাপক জয়ন্ত দাশ জানান, গাড়ি পার্কিংকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের দুটি পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের হয়েছে বলে শুনেছেন। ছাত্রলীগ হামলা করেছে কি না? জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুষ্কৃতকারীরা হামলা চালিয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সিলেট বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম শাহাদাত হোসেন বলেন, আলী বাহার টি এস্টেটের বাংলোতে মদন মোহন কলেজের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছেন তিনি। তিনি বলেন, অনুষ্ঠান আয়োজনের ব্যাপারে পুলিশকে জানানো হয়নি তবে ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে সেখানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। ওই ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি বলে জানান তিনি।

আরো পড়ুন ...