সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

গণঅধিকার পরিষদের কাউন্সিল চলছে

পাল্টাপাল্টি বহিষ্কারের মধ্যে নতুন নেতৃত্ব ঠিক করতে কাউন্সিল করছে নুরুল হক নুরের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ গণঅধিকার পরিষদ। পুরানা পল্টনের প্রতীম জামান টাওয়ারে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বেলা ১২টা থেকে ভোট গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা ছিলো বলে জানিয়েছেন নির্বাচন ব্যবস্থাপনা বোর্ডের প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরিফুল ইসলাম। কিন্তু দুপুর ১টায় ভোট গ্রহণ শুরু। চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

এই নির্বাচনে সভাপতি পদে তিন জন এবং সাধারণ সম্পাদক ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সভাপতি পদে বর্তমান সদস্য সচিব নুরুল হক নুর ছাড়াও আছেন বায়েজীদ হোসেন শাহেদ ও নাজমুস-সাকিব। আর সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীরা হচ্ছেন, দলের আহ্বায়ক রেজা কিবরিয়াকে বাদ দিয়ে আহ্বায়কের ভারপ্রাপ্ত দায়িত্বে থাকা রাশেদ খান ছাড়াও রয়েছেন বিপ্লব কুমার পোদ্দার, মাহফুজুর রহমান খান, জিলু খান ও হাসান আল মামুন।

এছাড়া উচ্চতর পরিষদে ৮টি পদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৮ জন প্রার্থী। তারা হলেন- শাকিল উজ্জামান, হানিফ খান সজিব, ফিরোজ আহমেদ, আবু হানিফ, শহীদুল ইসলাম ফাহিম, আনিসুর রহমান মোল্লা, ওয়াহিদুর রহমান মিল্কী, ফাতেমা তাসনিম, সরকার নুরে এরশাদ সিদ্দিকী, সাদ্দাম হোসেন, আল আমিন মিনা, মো. জসিম উদ্দিন, মঞ্জুর ইসলাম, এসএম সাফায়েত, আবদুল্লাহ আল মামুন সুজন ও আব্দুজ জাহের।

এই নির্বাচনে মোট ভোটারের সংখ্যা ২১৬ জন। এর মধ্যে উচ্চতর পরিষদের ভোটারের সংখ্যা ১২৬। অন্যগুলো জেলা প্রতিনিধি হিসেবে ভোটার তালিকায় স্থান পেয়েছেন।
ভোট উপলক্ষে জামান টাওয়ারে দুই শতাধিক নেতা-কর্মী সমবেত হয়েছে। তবে নেতা-কর্মীদের মধ্যে তেমন উৎসাহ পরিলক্ষিত হয়নি।

কেউ কেউ বলেছেন, দুই গ্রুপ হওয়াতে পার্টি ক্ষতিগ্রস্ত হলো।
জোনাব আলী এক কর্মী বলেন,  ভাই যাই বলেন আমরা সবাই ইয়াং। কিন্তু আজকে গণঅধিকার পরিষদের যেমন শক্তি প্রদর্শন হওয়ার কথা ছিলো, সেটা কিন্ত আপনি দেখছেন না। এর কারণে বিভক্তি।
গত ২ জুলাই গণঅধিকার পরিষদের জাতীয় কাউন্সিল ও উচ্চতর পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ৪ সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচন ব্যবস্থাপনা বোর্ড গঠন করা হয়। এতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার করা হয় গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুল ইসলামকে। নির্বাচন কমিশনার করা হয় সহকারী আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তৌফিক শাহরিয়ার, সহকারী আহ্বায়ক মাহবুব জনি এবং সদস্য তোফাজ্জল হোসেনকে।

২০২১ সালে গণঅধিকার পরিষদ প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে দলটি। আর পূর্ণাঙ্গ কমিটি হওয়ার আগেই দলে দেখা দিয়েছে ভাঙন।

আরো পড়ুন ...