শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪

উগান্ডায় সমকামিতার শাস্তি মৃত্যুদণ্ড

সমকামিতার জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি ঘোষণা করেছে উগান্ডা। মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইউরি মুসাভেনি সমকামিতা-বিরোধী নতুন বিলে স্বাক্ষর করেছেন। তবে উগান্ডার এই পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বিষয়টিকে মানবাধিকারের ভয়াবহ লঙ্ঘন বলে আখ্যায়িত করেন। পাশাপাশি তিনি উগান্ডার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকিও দিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

খবরে জানানো হয়, উগান্ডায় সমকামী সম্পর্ক আগে থেকেই অবৈধ। আফ্রিকার আরও ৩০টির বেশি দেশে সমকামিতা অবৈধ। কিন্তু উগান্ডার মতো এত কঠোর আইন কোনো দেশে নেই।  গত সোমবার নতুন এই আইনের ঘোষণা দেয় উগান্ডা সরকার। এতে কেউ সমকামিতায় দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে।

আর ১৮ বছরের নিচে কারও সঙ্গে সমকামী যৌন সম্পর্ক থাকলে কিংবা কারও মধ্যে এইডসের মতো প্রাণঘাতী ভাইরাস সংক্রমিত হলে নতুন আইনে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এ ছাড়া সমকামিতার প্রচার চালানোর ক্ষেত্রে ২০ বছরের সাজার বিধান রাখা হয়েছে নতুন আইনে। 

চলতি মাসের শুরুর দিকে উগান্ডার আইনপ্রণেতারা সমকামিতাবিরোধী খসড়া বিল পাস করে। ওই সময় বলা হয়, পশ্চিমা অনৈতিকতা থেকে উগান্ডার মূল্যবোধ রক্ষা করার জন্য এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর বিরুদ্ধে যেকোনো ধরনের বৈদেশিক হস্তক্ষেপ প্রতিহত করারও ঘোষণা দেওয়া হয়। 

তবে এরইমধ্যে উগান্ডার কঠোর এই আইনের কড়া সমালোচনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আইনটির বিরুদ্ধে উগান্ডার উচ্চ আদালতে আবেদন করার ঘোষণা দিয়েছে হিউম্যান রাইটস অ্যাওয়ারনেস অ্যান্ড প্রমোশন ফোরামসহ মোট ১১ মানবাধিকার সংগঠন। জো বাইডেন এ আইন নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, উগান্ডার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যে সম্পর্ক তা সব দিক থেকেই প্রভাবিত হবে নতুন এই আইনের ফলে। তিনি উগান্ডার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়ে বলেন, আমরা তাদের বিরুদ্ধে নতুন পদক্ষেপের কথা বিবেচনা করিছি। এরমধ্যে আছে নিষেধাজ্ঞা এবং যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ। যারাই এই আইন পাশের সঙ্গে যুক্ত তাদেরকেই এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হবে। মানব জমিন

আরো পড়ুন ...