Home Archives
Daily Archives

November 21, 2022

ঢাকা: ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপে ভয়াবহ ভূমিকম্পে কমপক্ষে ৪৪ জন নিহত হয়েছেন। এতে দুমড়ে মুচড়ে গেছে ওই দ্বীপটি। বহু ঘরবাড়ি ধসে গেছে। ফলে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের জিওলজিক্যাল সার্ভে বলেছে, সোমবার ৫.৬ মাত্রার ভূমিকম্পের উৎস ছিল পশ্চিম জাভার সিয়ানজুর অঞ্চলে ১০ কিলোমিটার গভীরে। সেখান থেকে অধিবাসীদের পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে রাজধানী জাকার্তার দিকে। এসব মানুষ রাস্তা ধরে নিরাপত্তার জন্য শুধু দৌড়াচ্ছিলেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা। ভূমিকম্পে ধ্বংস হয়েছে একটি ইসলামিক বোর্ডিং স্কুল, একটি হাসপাতাল, সরকারি বিভিন্ন স্থাপনাও। সিয়ানজুরের সরকারি কর্মকর্তা হারমান শুহেরম্যান মেট্রো টিভিকে বলেছেন, নিহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ জন।

আহত হয়েছেন তিন শতাধিক। তিনি বলেন, নিহতের এই সংখ্যা সিয়ানজুরের মাত্র একটি হাসপাতালের। সিয়ানজুরে আছে চারটি হাসপাতাল। ফলে নিহতের সংখ্যা বাড়বে। ওই শহরের স্থানীয় প্রশাসনের মুখপাত্র এডাম বলেন, কয়েক ডজন মানুষ মারা গেছেন। তার ভাষায়, শত শত এমন কি হাজার হাজার বাড়ি ধ্বংস হয়েছে। এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা ৪৪। মেট্রো টিভির ফুটেজে দেখা যাচ্ছে সিয়ানজুরের অনেক ভবন মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। উদ্বিগ্ন অধিবাসীরা বাইরে দাঁড়িয়ে শুধু ধ্বংসলীলা দেখছেন। ভূমিকম্প শক্তিশালীভাবে আঘাত করে গ্রেটার জাকার্তা এলাকায়। সেখানকার অনেক হাই-রাইজ ভবনে দোলা দিয়েছে। বহু নাগরিককে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। দক্ষিণ জাকার্তার একজন চাকরিজীবী ভিদি প্রিমাধানিয়া বলেন, কম্পন ছিল খুবই শাক্তিশালী। আমাদের অফিস ৯ম তলায়। সহকর্মীদের সঙ্গে আমিও ইমার্জেন্সি সিঁড়ি দিয়ে নিচে নেমে এসেছি।
0 comment
0 FacebookTwitterPinterestEmail

ঢাকা: কাতার বিশ্বকাপের শুরু হয়েছে বেশ চমক জাগানিয়াভাবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মরুভূমির ছাপ, আরব সংস্কৃতি তো ছিলই।

এর সঙ্গে ছিল হলিউড তারকা মরগ্যান ফ্রিম্যানের সঙ্গে শরীরের অর্ধেক অংশ না থাকা একজনের পারফরম্যান্স। তিনি আসলে কে?

এই ব্যক্তির নাম গানিম আল মুফতাহ। কাতারেই জন্ম তার। মায়ের পেটে থাকতে কাউডাল রেগরেসোন সিন্ড্রোম নামের এক জটিল রোগ ধরা পড়ে তার। তাতে শরীরের নিচের অংশ বিকলাঙ্গ হয়ে যায় ধীরে ধীরে। জন্মের আগেই তাকে অপারেশন করে ফেলে দিতে বললেও রাজি হননি মুফতাহর মা।

পরে ডাক্তাররা বলেছিলেন, তার ১৫ বছরের বেশি বাঁচার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। কিন্তু হাল ছাড়েননি মুফতাহ ও তার পরিবার। পেয়েছেন ফলও। গারসিয়া আইসক্রিম নামের একটি নিজস্ব কোম্পানি আছে মুফতাহর। কাতারে এটির আছে ছয়টি শাখা। স্বপ্ন দেখেন একদিন প্যারা অলিম্পিকে খেলার।

২০১৮ সালে টেড এক্স কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে একটি বক্তৃতার মাধ্যমে আলোচনায় আসেন মুফতাহ। পরে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি পান। ইনস্টাগ্রামে এক মিলিয়নেরও বেশি অনুসারী আছে মুফতাহর।

অদম্য এই তরুণ থেমে থাকেননি এখানেই। আরবের সবচেয়ে বড় পাহাড় জাবেল শামসের চূড়ায় উঠেছেন। স্কুলে থাকতে হাতে বুট লাগিয়ে খেলতেন ফুটবল, খেলেছেন আরও অনেক খেলাই। ওই সময়ই স্বপ্ন দেখতেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান পড়ে দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন। তিনি এখন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছেন নিজের পছন্দের বিষয়ে।

এবারের বিশ্বকাপের অ্যাম্বেসডরও তিনি। এ নিয়ে এক বিবৃতিতে বলেন, ‘অ্যাম্বাসেডর হিসেবে আমি আমার সক্ষমতা দিয়ে আশা, সামগ্রীকতা, শান্তি ও মানবতার জন্য ঐক্যবদ্ধতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে চাই। ’

0 comment
0 FacebookTwitterPinterestEmail

ঢাকা: আলো জ্বলে ওঠল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়ে গেল। কাতারে বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে অনেক বিতর্ক থাকলেও, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাতিয়ে দিলো তারা। দেয়া হলো ঐক্যের বার্তা, দেয়া হলো সাম্যের বার্তা। ফুটবলই যে দুনিয়াকে এক করতে পারে, সেই বার্তা বারে বারে উঠে এলো।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর মাঠে গড়ায় কাতারের ফুটবল বিশ্বকাপ। স্বাগতিক কাতার আর ইকুয়েডরের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হয় বিশ্বকাপ আসর।

আল বায়াত স্টেডিয়ামে আয়োজিত হয়েছে বর্ণিল এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। সেখানে শুরুতেই পারফর্ম করেছেন কাতারের আঞ্চলিক শিল্পীরা। নাচ-গান এবং ভিজুয়াল প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তারা তুলে ধরতে চেয়েছেন উপসাগরীয় দেশটির সংস্কৃতি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরুর অনেক আগে থেকেই ভিড় জমতে শুরু করেছিল আল বায়াত স্টেডিয়ামের বাইরে। হলুদ জার্সি এবং পতাকা নিয়ে সোল্লাসে স্টেডিয়ামের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন ইকুয়েডরের সমর্থকরা। অন্য প্রান্ত থেকে এগিয়ে আসছিলেন সাদা এবং সবুজ জার্সি পরিহিত কাতার সমর্থকরা। নাচগান, ঢাকঢোলের শব্দের মাধ্যমে পরিষ্কার হয়ে যায়, বিশ্বকাপ শুরু হতে আর দেরি নেই।

নির্ধারিত সময়ের কিছুটা পরেই শুরু হল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। প্রথমেই দেখা যায় কাতারের শাসক শেখ মহম্মদ বিন রশিদ আল-মাখতুম। প্রথমে গানের অনুষ্ঠান হয়। তার পরেই বিশ্বকাপে ঐক্যের বার্তা শোনাতে শোনাতে হাজির হন হলিউডি অভিনেতা মর্গ্যান ফ্রিম্যান। তার সাথে মঞ্চে প্রবেশ করে কাতারের বিশেষভাবে সক্ষম ঘানেম আল-মুফতাহ।

0 comment
0 FacebookTwitterPinterestEmail