Home Archives
Daily Archives

November 7, 2022

ঢাকা: রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনের বিস্তারিত তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। সোমবার (৭ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশনের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম এ তফসিল ঘোষণা করেন। কমিশন আগেই জানিয়েছে, আগামী ২৭ ডিসেম্বর রংপুরের ভোট হবে।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী  মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ২৯ নভেম্বর। প্রার্থিতা বাছাই ১ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৮ ডিসেম্বর।

রংপুর সিটি নির্বাচন ইভিএমে অনুষ্ঠিত হবে। ভোটগ্রহণ শুরু হবে সকাল ৮টায় এবং শেষ হবে বিকাল সাড়ে ৪টায়। নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক আব্দুল বাতেন এ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিলরংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল

এদিকে ২৯ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে পাঁচটি পৌর নির্বাচনেরও তফসিল ঘোষণা করেছে ইসি।

পৌরসভাগুলো হচ্ছে রাজশীর বাঘা, দিনাজপুরের বিরল, পঞ্চগড়ের বোদা, ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা ও নাটোরের বনপাড়া।

তফসিল অনুযায়ী পৌরসভাগুলোর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়ে ১ ডিসেম্বর,  প্রার্থিতা বাছাই ৩ ডিসেম্বর এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ১০ ডিসেম্বর।

একই তফসিলে ৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন এবং ১৮টি ইউনিয়ন পরিষদে বিভিন্ন পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের ভোট  ব্যালটে গ্রহণ করা হবে।

0 comment
0 FacebookTwitterPinterestEmail

ঢাকা: মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচন। এতে কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ৪৩৫ আসন এবং উচ্চকক্ষ সিনেটের ৩৫ আসনের জন্য ভোট দেবেন আমেরিকানরা। প্রেসিডেন্টের মেয়াদ যখন একেবারে অর্ধেক হয়ে আসে তখনই দেশটিতে এই মধ্যবর্তী নির্বাচন আয়োজিত হয়।

এই নির্বাচনেই নির্ধারিত হয়, ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট আগামী দুই বছর কতখানি ক্ষমতাধারী থাকবেন। নিম্নকক্ষ ও উচ্চকক্ষের নিয়ন্ত্রণ হারালে প্রেসিডেন্ট ‘লেম-ডাকে’ পরিণত হন। প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ডেমোক্রেট দল যথেষ্ট ভোট না পেলে কংগ্রেসের দুই কক্ষেরই পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ হারাতে পারে। সেক্ষেত্রে উভয় কক্ষই বিরোধী রিপাবলিকান দলের নিয়ন্ত্রণে চলে যাওয়ার ঝুঁকি আছে। তেমন হলে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের জন্য কোনও কাজ করা খুব কঠিন হয়ে পড়বে। বিশেষ করে নতুন কোনও আইন সহজে পাস করতে গেলে বাইডেনের জন্য কংগ্রেসের দুই কক্ষেরই নিয়ন্ত্রণ পাওয়া জরুরি।

এখন পর্যন্ত মধ্যবর্তী নির্বাচনে রিপাবলিকান এবং ডেমোক্রেট দলের সমর্থন প্রায় সমানই মনে হচ্ছে। যদিও একেবারে শেষ দিকের জরিপগুলো বলছে, রিপাবলিকানরা হয়ত পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ এবং উচ্চকক্ষের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবে। ২০১৮ সালে তারা ডেমোক্রেটদের কাছে এর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছিল।

ফাইভথার্টিএইট-এর জরিপ বলছে, হাউজ অব রিপ্রেজেন্টিভে রিপাবলিকানরা ২১৫ থেকে ২৪৮ আসন পাবে। এই সংস্থাটি তার নির্বাচন নিয়ে জরিপের জন্য পরিচিত।

তারা বলছে, ডেমোক্রেটদের প্রধান টার্গেট রিপাবলিকানদের কাছ থেকে পেনসিলভানিয়া নিয়ে নেয়া। অপরদিকে রিপাবলিকানরা ডেমোক্রেটদের থেকে জর্জিয়া ও নেভাডা নিয়ে নেয়ার লক্ষ্য হাতে নিয়েছে। যদি ডেমোক্রেটরা সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় তাহলে আগামী দুই বছর প্রেসিডেন্টের পক্ষে তেমন কোনো আইনই পাশ করা সম্ভব হবে না। ভোটাররা ৫০ প্রদেশের ৩৬টিতে গভর্নর নির্বাচিত করতেও ভোট দেবেন। এরমধ্যে ২০টিতে ক্ষমতায় আছে রিপাবলিকানরা এবং ১৬টিতে ক্ষমতায় আছে ডেমোক্রেটরা। এই গভর্নর নির্বাচনের প্রভাব পড়বে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও।
ওয়াশিংটনের পিউ রিসার্চ সেন্টার জানিয়েছে, এবারের নির্বাচনে ভোটারদের কাছে সবথেকে গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনীতি। ৭৯ শতাংশ ভোটারই বলেছেন, এবার তারা কাকে ভোট দেবে তা নির্ধারণে অর্থনীতিকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন তারা। সর্বশেষ মাসগুলোতে অর্থনীতি নিয়ে মার্কিনিদের চিন্তাভাবনা ছিল বেশ নেতিবাচক। রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর নিজের অর্থনীতিই চাপে পড়েছে। জ্বালানী এবং খাদ্যের দাম বৃদ্ধি এবং সার্বিক মূল্যস্ফীতির বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন মার্কিন ভোটাররা।

তবে অনেকের কাছে বিশ্বে গণতন্ত্রের ভবিষ্যতও একটি বিবেচ্য বিষয়। আবার ৬০ শতাংশ তার ভোটের জন্য শিক্ষা, স্বাস্থ্য, জ্বালানী নীতি এবং সহিংস অপরাধের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। অস্ত্র আইন ও গর্ভপাতও গুরুত্ব পাচ্ছে ৫০ শতাংশের কাছে। ডেমোক্রেট এবং রিপাবলিকান উভয় দলের জন্যই ভোট আদায়ে পেনসিলভেনিয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রদেশ হয়ে উঠেছে। এ প্রদেশে সিনেট নির্বাচনে খুব কম ব্যবধানে মুখোমুখি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দুই প্রার্থী- ডেমোক্র্যাট জন ফেটারম্যান এবং রিপাবলিকান মেহমেত ওজ। তাদেরকে জিতিয়ে আনতেই সেখানে প্রচার চালাতে মাঠে নেমেছেন স্ব স্ব দলের তিন নেতা- ট্রাম্প, ওবামা এবং বাইডেন।

যদিও ট্রাম্পকে দেখা গেছে নিজের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়েও কথা বলতে। পেনসিলভেনিয়াতে তিনি জন সমাবেশে সমর্থকদের জানান, ২০২৪ সালের নির্বাচনে ‘খুব সম্ভবত’ তিনি আবারও প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করবেন।

0 comment
0 FacebookTwitterPinterestEmail

ঢাকা: সিলেট জেলা বিএনপি নেতা আফম কামালকে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে। রাত ৯ টার দিকে সিলেট নগরীর আম্বরখানা বড় বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আফম কামাল সিলেটের পরিচিত মুখ। তিনি জেলা বিএনপির সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ও ল’কলেজের সাবেক জিএস।

পুলিশ জানায়- আফম কামাল রোববার রাত ৯ টার দিকে নগরীর আম্বরখানা বড় বাজার এলাকা দিয়ে প্রাইভেট কার যোগে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে এলোপাতাড়ি কুপায় সন্ত্রাসীরা। হামলায় গুরুতর আহত আফম কামালকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আম্বরখানা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মফিজুর রহমান মানবজমিনকে জানিয়েছেন- এ ঘটনার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে হামলাকারী দলের প্রধান ইশতিয়াক আহমদ রাজুকে নগরের চৌকীদেখি এলাকার নিজ বাসার সামন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সে এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসী ও ছিনতাইকারী। দু’দিন আগে তার নেতৃত্বে সাংবাদিক দিপু সিদ্দিীকির ভাইয়ের উপর হামলা হয়েছিল।

সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী জানিয়েছেন- কি কারণে হামলা হয়েছে আমরা জানি না। লাশ ওসমানীতে নিয়ে আসার পর আমরা এসেছি। তিনি বলেন- এ ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না।

আফম কামাল সিলেট বিএনপির পরিচিত মুখ। তার মৃত্যুতে বিএনপি পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তিনি অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি করেন।

0 comment
0 FacebookTwitterPinterestEmail